আজ ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

স্বামীকে নিয়ে কাড়াকাড়ি, সালিশে জিতলেন দ্বিতীয় স্ত্রী

বেশ কয়েকদিন আগে দেশে ফিরে বিমানবন্দরেই দুই স্ত্রীর টানাহেঁচড়ার মধ্যে পড়েন মাঈনুল।বহু কান্ডের পর অবশেষে দুই স্ত্রীর দ্বন্দ্বের অবসান হলো। দ্বিতীয় স্ত্রীর ভাগ্যেই জুটলেন স্বামী। সোমবার কুমিল্লায় এক গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে বিষয়টি মিটমাট হয়েছে।প্রথম স্ত্রীকে তালাক দেন মালদ্বীপ প্রবাসী স্বামী মাঈনুল।

সোমবার সকালে স্থানীয়দের নিয়ে গ্রাম্য সালিশে বসেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। সবার উপস্থিতিতে মাঈনুল তার প্রথম স্ত্রী সানজিদার সাথে থাকতে না চাওয়ায় তাকে তালাক দেন। ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মামুনুর রশীদ বলেন, মাইনুল তার প্রথম স্ত্রীকে নিয়ে ঘর-সংসার করতে রাজি না হওয়ায় আমরা সিদ্ধান্ত নিয়ে দুই স্ত্রীকে আলাদা করে দিয়েছি।

মাঈনুলের চাচা আলী আহমেদ মিয়াজী বলেন, প্রথম স্ত্রীকে ইসলামী শরীয়া মোতাবেক ডিভোর্স দেওয়া হয়েছে এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে সফলভাবে আজকের রায় কার্যকর হয়েছে।

Advertisements

আলোচিত এই ঘটনাটি সমাধান হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছে মাঈনুল। মাঈনুল বলেন, সানজিদা আমাকে ঠিকমত সময় দিত না। এ কারণেই আমি তার কাছ থেকে সরে গেছি। অবশেষে সমাধান হওয়ায় আমার স্বস্তিবোধ হচ্ছে। দুই বউও অবশেষে মেনে নিয়েছেন সালিশের রায়।

প্রথম বউ সানজিদা বলেন, আমাদেরকে সমাধান করে দিয়েছে। আমার ভাগ্যে ছিল না, তাই আমি পাই নাই। দ্বিতীয় বউ তমা বলেন, আমি অনেক খুশি আমার স্বামীকে আমি অবশেষে পেয়েছি। শেষ পর্যন্ত মাঈনুল জুটলেন দ্বিতীয় বউয়ের ভাগ্যে। শেষ পর্যন্ত অবসান ঘটলো আলোচিত দুই স্ত্রী এক স্বামীর গল্পের।

গত ১৮ আগস্ট বিকেলে মালদ্বীপ থেকে প্রবাসী মাঈনুল দেশে ফিরে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে নিজ বাড়ি কুমিল্লা যাওয়ার জন্য ভাড়া গাড়িতে উঠে বসলেই টেনে নামানোর চেষ্টা করে তার প্রথম স্ত্রী সানজিদা।

প্রথম স্ত্রীর দাবি, ৭ বছর আগে তাদের বিয়ে হলেও তাকে না জানিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করেন তার স্বামী। মাইনুলের দ্বিতীয় স্ত্রী তমার দাবি, তিনিই প্রথম স্ত্রী। আইনগতভাবে বিচ্ছেদ না হলেও সানজিদা ও তার ৩ বছরের শিশুর কোনো ভরণপোষণ দেন না মাঈনুল। সানজিদাকে প্রথম স্ত্রী হিসেবে স্বীকার করলেও তার সাথে আর সংসার করতে চান না বলেও জানান মাঈনুল।

স্বামীকে নিয়ে দুই বউয়ের মারামারি সিনেমার গল্পকেও হার মানিয়ে যায়।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্বামীকে নিয়ে টানাটানির ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়।তিন জনকেই থানায় পাঠিয়ে দেয় বিমান বন্দরে নিয়োজিত নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।থানায় মুচলেকা দিয়ে তিনজনকেই ছাড়িয়ে নেন মাইনুলের চাচা। ফিরে যান কুমিল্লার দাউদকান্দিতে।

 

     এই বিভাগের আরও খবর দেখুনঃ