আজ ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

স্কুলছাত্রকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানো সেই এসআই চাকরিচ্যুত

চট্টগ্রাম মহানগরীর ডবলমুরিং থানা এলাকায় ইয়াবা দিয়ে একজন স্কুলছাত্রকে ফাঁসানো এবং পরবর্তীতে ছাত্রের মা-বোনের সঙ্গে অশোভন আচরণ ও শেষে স্কুলছাত্রের আত্মহত্যার ঘটনায় দায়ী এসআই হেলাল উদ্দিনকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে দায় প্রমাণিত হওয়ায় বিধি অনুযায়ী গুরুদণ্ড দেয়া হয়েছে।

মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (সদর) আমীর জাফর বলেন, স্কুলছাত্র আত্মহত্যার ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি এই ঘটনায় উপ-পরিদর্শক হেলাল খানের দায় পেয়েছে। এই কারণে তাঁকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

গত ১৬ জুলাই রাতে বাদামতলীর বড় মসজিদ গলির বাসায় উঁকিঝুঁকি দেয় একজন সাদা পোশাকের ব্যক্তি। তাকে চোর মনে করে স্কুলছাত্র সালমান ইসলাম মারুফ চিৎকার দেয়। এতে ওই ব্যক্তি স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়েন এবং উত্তম মধ্যম পিটুনির শিকার হন।

পরে ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাদা পোশাকে হেলাল উদ্দিন নিজকে পুলিশ পরিচয় দেন এবং উঁকি দেয়া ব্যক্তিকে সোর্স বলে জানান। তখন স্কুলছাত্র মারুফের মা-বোন হেলাল খানের কাছে ক্ষমা চেয়ে বলেন, কয়েকদিন আগে মারুফের বাইকেল ও মোবাইল ফোন চুরি হয়েছে। এই কারণে সে উঁকিঝুঁকি দেয়া ব্যক্তিকে চোর সন্দেহ করে চিৎকার দিয়েছে।

Advertisements

মারুফের মা-বোনের ক্ষমা প্রার্থনাকে অগ্রাহ্য করে হেলাল উদ্দিন মারুফকে ইয়াবা পাচারকারী দাবি করে গ্রেফতারের চেষ্টা করেন। তখন ঘটনাস্থল থেকে কৌশলে মারুফ সরে যায়। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে এসআই হেলাল মারুফের মা-বোনকে গ্রেফতার করে থানায় নেয়ার চেষ্টা করে। এই সময় তার মা-বোনের শ্লীলতাহানীর অভিযোগও উঠে।

ফলে স্থানীয়রা সড়ক অবরোধ করে এর প্রতিবাদ শুরু করে। সেই সময় অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিকে মারুফের মা-বোনকে পুলিশ আটক করে নিয়ে গেছে এমন তথ্য জেনে বাসায় ফিরে আত্মহত্যা করে দশম শ্রেণির ছাত্র মারুফ। এই ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

 

     এই বিভাগের আরও খবর দেখুনঃ