আজ ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

https://jatiyobarta.com/wp-content/uploads/2020/11/যক্ষ্মার-ভ্যাকসিন-কমায়-করোনা-হওয়ার-সম্ভাবনা-.jpg
যক্ষ্মার ভ্যাকসিন কমায় করোনা হওয়ার সম্ভাবনা!

যক্ষ্মার ভ্যাকসিন কমায় করোনা হওয়ার সম্ভাবনা!

সিডারস-সিনাইয়ের নতুন একটি গবেষণা বলছে যক্ষ্মার ভ্যাকসিন বিস্তৃতভাবে ব্যবহারে কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করে।। ওই গবেষণায় পাওয়া পর্যবেক্ষণগুলো বলছে, ভ্যাকসিনটি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এবং রোগের তীব্রতা হ্রাস করতে ভূমিকা রাখতে পারে।

গবেষণায় উল্লিখিত ভ্যাকসিনটির নাম বাসিলিস ক্যালমেটে-গুয়েরিন (বিসিজি)। ভ্যাকসিনটি ১৯০৮ ও ১৯২১-এর মাঝামাঝিতে বিকশিত হয়। এ ভ্যাকসিনটি প্রতি বছর ১০০ মিলিয়নের বেশি শিশুকে দেয়া হয়।

যুক্তরাষ্ট্রে ব্লাডার ক্যানসারের জন্য এটি ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) স্বীকৃত ওষুধ এবং যক্ষ্মায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে থাকা ব্যক্তিদের জন্য ভ্যাকসিন হিসেবে ব্যবহৃত হয়। বিশ্বব্যাপী একাধিক ট্রায়ালে বর্তমানে কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধেও বিজিসি ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

Advertisements

১৯ নভেম্বর নতুন গবেষণাটি ‘দ্য জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল ইনভেস্টিগেশন’ অনলাইনে প্রকাশ করা হয়। গবেষকরা সার্স-কোভ-২-এর অ্যান্টিবডির উপস্থিতি প্রমাণের জন্য ছয় হাজার স্বাস্থ্যসেবাকর্মীর রক্ত পরীক্ষা করে দেখেছেন। পাশাপাশি তাদের মেডিকেল ও ভ্যাকসিনেশন ইতিহাসও জানতে চাওয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ কুরআন থেকে শিক্ষা নিয়ে, ইরানি জাতি যুক্তরাষ্ট্রেকে মোকাবেলা করছে

তাতে দেখা যায়, যেসব কর্মী অতীতে বিসিজি ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন (গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের প্রায় ৩০ শতাংশ) তাদের মাঝে সার্স-কোভ-২-এর অ্যান্টিবডি টেস্টে পজিটিভ আসার হার উল্লেখযোগ্যভাবে কম।

     এই বিভাগের আরও খবর দেখুনঃ