আজ ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বড় হামলার সামর্থ্য জঙ্গিদের নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সম্প্রতি সাভারে র‌্যাবের অভিযানে গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা জঙ্গি সংগঠনের সক্রিয় সদস্য বলে দাবি করা হচ্ছে।

কোরবানির ঈদ ঘিরে জঙ্গি হামলার শঙ্কায় পুলিশ সতর্ক হয়ে উঠলেও বড় ধরনের হামলার আশঙ্কা নাকচ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

তিনি ঈদের তিন দিন আগে সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে বলেন, “আমি সব সময়ই বলেছি, জঙ্গি আমরা কন্ট্রোলে এনেছি, কিন্তু একদম সমূলে উৎপাটন করতে পারিনি।

Advertisements

“ছোট ছোট ‘স্লিপিং সেল’ এখনও বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন অবস্থানে রয়েছে। সেগুলোর কার্যকারিতা তেমন কিছু নেই। আমি মনে করি তাদের (জঙ্গি) সেই সক্ষমতা, দক্ষতা নেই। মাঝে মাঝে তাদের উপস্থিতি বোঝাবার জন্য কিছু কিছু ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা করে।”

বাংলাদেশের ইতিহাসে ভয়াবহতম জঙ্গি হামলা হয়েছিল ২০১৬ সালে গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে। ওই হামলার কয়েকদিন পরই ৭ জুলাই শোলাকিয়ায় ঈদ জামাতে হামলার চেষ্টা চালিয়েছিল জঙ্গিরা।

এরপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধারাবাহিক অভিযানে জঙ্গিনেতাদের প্রায় সবাই ধরা পড়েন কিংবা মারা পড়েন। তাতেই জঙ্গিদের মেরুদণ্ড ভেঙে পড়ে বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি।

“নিরাপত্তা বাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা ও অত্যন্ত ‘প্রফেশনালি হ্যান্ডেল’ করেছে। আজকে সেজন্য জঙ্গি বলুন, সন্ত্রাস বলুন, এগুলো থেকে দেশ রেহাই পেয়েছে।”

কয়েক বছর আগে মধ্যপ্রাচ্যে ইসলামিক স্টেটসের (আইএস) পতন ঘটার পর বিশ্বেই জঙ্গি তৎপরতা অনেকটাই কমে আসে।

তবে এর মধ্যেই বাংলাদেশে দুই-একটি বোমা বিস্ফোরণ কিংবা পেতে রাখার সঙ্গে জঙ্গিদের সংশ্লিষ্টতার কথা জানায় পুলিশ।

এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, “আপনারা যেটা শুনেছেন, মাঝে মাঝে গোয়েন্দারা জানাচ্ছে। সেজন্য নিরাপত্তা বাহিনী যা যা পূর্ব সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া দরকার, সেগুলো করছে।

“পুলিশ, র‌্যাব সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। সব সময় তারা (জঙ্গি) চিন্তা করে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে কিছু করবে, সেখানেও আমাদের নজর রয়েছে।”

আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, “যারা ১৫ আগস্টের ঘটনা ঘটিয়েছিল, তারা অনেক সময় দুঃস্বপ্ন দেখে। সেটা নিয়ে তারা অনেক ধরনের জল্পনা-কল্পনা করে, সেগুলোর কিছু অংশ গোয়েন্দা সংস্থা কিছু ইঙ্গিত পেয়ে থাকে।

“এগুলো ‘সিরিয়াস’ কিছু নয়। তারা এ ধরনের ঘটনা ঘটাতে পারবে বলে আমরা বিশ্বাস করি না। যে বার্তাগুলো আসছে তা নিছকই জানান দেওয়ার জন্য।”

কূটনৈতিক এলাকা ও ধর্মীয় উৎসব স্থলসহ সব জায়গায় নিরাপত্তা বাহিনী সতর্ক রয়েছে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

শনিবার রাতে রাজধানীর গুলিস্তানে স্টেডিয়ামের পাশে বঙ্গবন্ধু স্কয়ারের কাছে দায়িত্বরত একজন ট্রাফিক সার্জেন্টের দাঁড় করিয়ে রাখা মোটরসাইকেলে কে বা কারা পলিথিন ব্যাগে বোমা রেখে যায়।

এর আগেও একই জায়গায় পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছিল। সেই ঘটনার পেছনে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা পাওয়ার কথা সে সময় বলেছিলেন তদন্তকারীরা।

     এই বিভাগের আরও খবর দেখুনঃ