আজ ১০ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

পিএসজি হারায় ফ্রান্সের রাস্তায় উল্লাস!

বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে ১-০ গোলে হেরেছে প্যারিস সেন্ট জার্মেইন। তাদের হারে খুশি হয়েছেন ফ্রান্সের অনেকে। আনন্দ মিছিল বের হয়েছে রাস্তায়। তারা মূলত ফ্রান্স ক্লাব মার্সেইয়ের সমর্থক। এমনকি ফ্রান্স জাতীয় দলের ফুটবলার এবং ফ্রান্স লিগের দল মার্সেইয়ে খেলা দিমিত্রি পায়েটও ভেংচি কেটেছেন পিএসজিকে।

ফ্রান্সের চতুর্থ দল হিসেবে পিএসজি ইউরোপ সেরার ফাইনালে উঠেছিল। কিন্তু শিরোপা জিততে পারেনি। চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের কৃতিত্ব এখনও তাই কেবল মার্সেইয়ের টিকে রইল। ১৯৯৩ সালে ইউরোপ সেরার মুকুট জিতেছিল তারা। লিগ ওয়ানের ক্লাবটি আবার পিএসজির বড় প্রতিপক্ষ। তাদের সঙ্গে পিএসজির সম্পর্ক তিক্ত। অনেকটা লা লিগার রিয়াল-বার্সার মতো। কিংবা ইংলিশ লিগে ম্যানইউ-লিভারপুল যেমন।

বায়ার্নের বিপক্ষে পিএসজি হারার পরই তাই মার্সেই ভক্তরা উদযাপন করতে রাস্তায় নেমে পড়েন। উল্লাস করেন, আনন্দ মিছিল করেন। আর পায়েট একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। সেখানে দেখা গেছে পিএসজির লোগো সম্বলিত জার্সি। আঙুলের ইশারায় তিনি পিএসজি নয় বরং মার্সেইয়ের লোগো দেখান। আর খেলেন, একটিই ইতিহাস, ফ্রান্সের একটিই অফিসিয়াল ক্লাব এবং শহরও একটি।

Advertisements

আর ফ্রান্সের রাস্তায় নেইমার-এমবাপ্পেদের হারের পর ভক্তরা সামাজিক দূরত্বের কথা মাথায়ই রাখেননি। তারা স্লোগান ধরেন, প্যারিসিয়ানরা কই। কোথায় তারা। পিএসজি ফ্রান্সের খুব বেশি দিনের ক্লাব নয়। মাত্রই ৫০ বছর পূর্তি করলো তারা। কাতারের তেলের অর্থের ঝনঝনানিতে তারা শক্তিশালী দল গড়েছে। লিগে একক আধিপত্য কায়েম করেছে। তবে ঐতিহ্যবাহী ক্লাবের নাম বললে মার্সেইয়ের কথা উল্লেখ করতেই হবে। ২০১৮ সালে দিমিত্রি পায়েট এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, এখনও মার্সেই ফ্রান্সের সবচেয়ে বড় ক্লাব।

 

     এই বিভাগের আরও খবর দেখুনঃ