আজ ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ধর্ষণের পর হত্যা: এরপরও কিভাবে ফিরে আসলো সেই তরুনী

নারায়ণগঞ্জের চাঞ্চল্যকর জিসা ধর্ষণ এবং হত্যা মামলার ৩ আসামি কারাগারে । ধর্ষণ শেষে হত্যা করা হয়েছে এমন স্বীকারোক্তিও দিয়েছেন ৩ আসামি । সব জল্পনার কল্পনার অবসান শেষে ৫১ দিন পরে বাড়ি ফিরে আসে জিসা । জানা যায় মেয়েটি তার প্রেমিকের সাথে পালিয়েছিল এবং এতোদিন তারা একসঙ্গেই ছিলো । সেক্ষেএে প্রশ্ন উঠেছে গ্রেফতারকৃত আসামিদের কি তাহলে পুলিশ রিমান্ডে নিয়ে জোরপূর্বক স্বীকারাক্তি দিয়েছে ?

গত ৪ জুলাই ২০২০ থেকে নিখোঁজ হয় সরকারি প্রাইমারি স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী জিসা মনি। ১৭ জুলাই সদর মডেল থানায় জিডি করেন জিসা মনির বাবা জাহাঙ্গীর হোসেন । এরপর ৬ আগস্ট থানায় অপহরণ মামলা করেন তিনি ।

মামলায় বলা হয়, “আসামি আব্দুল্লাহ তার মেয়েকে স্কুলে যাওয়া-আসার পথে উত্ত্যক্ত করত । সে গত ৪ জুলাই সন্ধ্যায় ফোনে ঠিকানা দিলে আমার মেয়ে ওই ঠিকানায় যায় । পরে তাকে অপহরণ করে আব্দুল্লাহ ও তার সহযোগীরা ।’

Advertisements

পুলিশ মোবাইলের কললিস্ট চেক করে রকিবের সন্ধান পায়।পুলিশের ধারণা রকিবের মোবাইল নম্বর দিয়ে আব্দুল্লাহ যোগাযোগ করতেন জিসার সঙ্গে । এ ঘটনায় রকিব, আব্দুল্লাহ ও নৌকার মাঝি খলিলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ ।

গত ৯ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিল্টন হোসেন ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ হুমায়ূন কবিরের পৃথক আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন আসামিরা । স্বীকারোক্তিতে তাঁরা জানান, জিসাকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণের পর হত্যা করে লাশ ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে শীতলক্ষ্যা নদীতে ।
অন্যদিকে পুলিশ ও পরিবারের সদস্যরা জানায়, গত রবিবার একটি মোবাইল ফোনের দোকান থেকে জিসা তার মা রেখা আক্তারকে ফোন করে কিছু টাকা চায় । জিসার বাবা বিষয়টি মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে জানান । পরে মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে নবীগঞ্জ থেকে উদ্ধার করা হয় জিসাকে ।পরবর্তীতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল আদালতে জবানবন্দি দেওয়ার পর সোমবার সন্ধ্যায় জিসাকে তার বাবার জিম্মায় দেওয়া হয়েছে । বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান ।

এদিকে প্রশ্ন উঠেছে তাহলে পুলিশ গ্রেফতার করলো কাদের এবং তাদের দোষ কি ছিলো ? তাহলে কি রিমান্ডে থাকতেই পুলিশ বাধ্য করেছে ঘটনার দায়ভার স্বীকার করে এমন জবানবন্দি দিতে; এমন সব প্রশ্ন উঠেছে সাধারণ মানুষের মনে !

 

     এই বিভাগের আরও খবর দেখুনঃ