আজ ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গরুচোর সন্দেহে মা-মেয়েকে রশিতে বেঁধে নির্যাতন

শুক্রবার (২১ আগস্ট) দুপুরে কক্সবাজারের চকরিয়ায় গরুচোর সন্দেহে এক রশিতে বেঁধে মা-মেয়েকে নির্যাতন করা হিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।এ ঘটনার পরে জনতা ও ইউপি চেয়ারম্যান তাদের পুলিশে দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।রশিতে বাঁধা অবস্থায় মা-মেয়েকে এলাকায় ঘোরানোর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম এ ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, ‘আমার এলাকার স্থানীয় জনতা নারীসহ পাঁচ গরুচোরকে হাতেনাতে আটক করে। পরে আমার কার্যালয়ে নিয়ে আসে। তখন আমি এলাকায় ছিলাম না। আমাকে আমার এলাকার লোকজন ফোন করলে আমি চকরিয়া থানার পুলিশকে ফোনে বিষয়টি অবহিত করি। তখন পুলিশ আমার কার্যালয়ে এসে তাদের নিয়ে যায়। তাদের আমি কোনোভাবে নির্যাতন করিনি। তাদের সঙ্গে আমার দেখাও হয়নি।’

এ বিষয়ে চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মিজানুর রহমান জানান, ‘নারীসহ গরুচোর সিন্ডিকেটের পাঁচ সদস্যকে এক কিলোমিটার ধাওয়া করে স্থানীয় জনতা আটকের খবরে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে। সে সময় দুই নারী ও তিন পুরুষ সদস্যকে স্থানীয় ইউপি কার্যালয় থেকে আটক করা হয়। তাদের প্রথমে চকরিয়া হাসপাতাল ও পরে বাদীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তদের মধ্যে মা-মেয়েসহ চার জনের বাড়ি পটিয়ার শান্তির হাটে। অপরজনের বাড়ি পেকুয়া উপজেলার লালব্রিজ এলাকায়।’

একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, গরু চোর সন্দেহে প্রথমে স্থানীয়রা একদফা মা-মেয়ের ওপর নির্যাতন চালানোর পরে ইউপি ও গ্রাম পুলিশ মা-মেয়েকে এক রশিতে বেঁধে ইউপি কার্যালয়ে নিয়ে এসে পুনরায় নির্যাতন করে।

Advertisements

     এই বিভাগের আরও খবর দেখুনঃ